An Education Blog

word direction logo

বাংলাদেশি চিকিৎসকের সফটওয়্যার এ চলবে সারা বিশ্বের চিকিৎসা কার্যক্রম

Anaesmon- Dr. Asit Bardhan

বাংলাদেশি চিকিৎসকের সফটওয়্যার এ চলবে সারা বিশ্বের চিকিৎসা কার্যক্রম

ডা. অসিত বর্ধন, ভ্যানকুভার, কানাডা থেকে

গত তিন বছর ধরে তিল তিল করে একটা স্বপ্ন গড়ে তুলেছি। আজ সেই স্বপ্ন বাস্তবের মুখোমুখি। প্রায় ১৬ বছর হলো দেশের বাইরে আছি । কানাডায় এসে পরীক্ষার যাঁতাকল থেকে মুক্তি পেয়ে ২০১২ তে শুরু হয় স্বপ্ন বুনন। ২০১৩ তে এই সফটওয়্যার তৈরি করা নিয়ে কাজ শুরু করি। স্বপ্ন ছিল এটা বাংলাদেশে ব্যবহার হবে। আর যদি বাইরের পৃথিবীতে নিতে পারি তাহলে বাংলাদেশের নাম উচ্চারিত হবে প্রতিদিন প্রত্যেক ব্যবহারকারীর মুখে! সেজন্য এই সফটওয়্যার কোম্পানির সংক্ষেপিত নাম BDEMR. BD আমার প্রিয় বাংলাদেশ। EMR (ইলেক্ট্রনিক মেডিকেল রেকর্ড) এর সংক্ষেপ।

এই গত তিন বছরে আমার হাসপাতালের পেশাগত ব্যস্ততার বাইরে প্রতিটা মুহূর্ত কেটেছে এই সফটওয়্যারর পিছনে। কত রাত ঠিক মত ঘুমাইনি। কত দিন ভোরবেলা এসে বসেছি কম্পিউটারের সামনে। গাল মন্দ শুনতে হয়েছে, নিজের বাড়িতেই! কারণ সুখে থাকতে ভুতে কিলায়! কি প্রয়োজন এভাবে নিজেকে নিঃশেষ করার ? সময় নষ্ট, শরীর নষ্ট, টাকা নষ্ট! কোন রকমে কানে তুলা গুঁজে একলা চলেছি স্বপ্নের রাস্তায়। সামাজিক জীবনেও কত অভিযোগ! আমাকে পাওয়া যায়না, যোগাযোগ রাখিনা!

আমার সেই স্বপ্নের কারিগর বাংলাদেশে কয়েকজন তরুণ কম্পিউটার বিজ্ঞানী। স্কাইপি আমাদের একমাত্র যোগাযোগ মাধ্যম। প্রায়ই মিটিং আর সিটিং চলে মাঝরাত পর্যন্ত, রাত ততক্ষণে নিজেই ঘুমিয়ে গেছে, বাড়ির সবাই বিরক্ত আমার উপর! হসপিটালে নার্সেরা আড়ালে হাসে হয়ত! বলে “অসিত তুমি ফোন এত ভালবাসো? অবসর পেলেই ডুবে যাও ফোনে? কাউকে তো আর বলা যায় না, ফোন দেখি না, ডুবে থাকি স্বপ্নের মধ্যে! মাথায় ঘোরে কিভাবে আরও ভাল করা যায়? তথ্যগুলো ঠিক আছে তো ? সমসাময়িক তো? যেভাবে চেয়েছি ঠিক সেইভাবে পাওয়া যাচ্ছে তো ? মাঝে মাঝেই ক্লান্তি আসত ! কি দরকার ? নিজে খুব তো খারাপ কিছু নেই! শরীর হাল ছেড়ে দিত। রাত কাটিয়ে আবার উঠে দাঁড়াতাম।

anaesmon

বলাবাহুল্য গতবার বাংলাদেশে যেয়ে কয়েকজনকে যখন জানালাম প্রতিক্রিয়া ছিল পাঁচমিশালি। ‘এসব এখানে চলবে না! কেউ কি ব্যবহার করবে? আমি নিশ্চয়ই ব্যবহার করব, তুমি নিয়ে এস অসিত!” আশা নিরাশার দোলাচলে দুলতে থাকি। আমাদের প্রিয় দুইজন অধ্যাপক খুব উৎসাহ দিলেন। আবার আশার এক বিশাল বেলুন নিয়ে ফিরে আসি। আবার স্বপ্নের মধ্যে ডুবে যাই।

Anaesmon এর সাথে সাথে আমাদের আরও কয়েকটা সফটওয়্যার প্রকাশিত হওয়ার অপেক্ষায়। এগুলোর নাম BDEMR Doctors app, BDEMR Patient app, BDEMR Report app। এগুলো দিয়ে অনলাইনে প্রেস্ক্রিপশান করা যাবে। যে কোন পরীক্ষার রিপোর্ট ঘরে বসেই পাওয়া যাবে।

anaesmon by bangladeshi doctor.

এবার Anaesmon দেখানো হবে কানাডায়। বাংলাদেশি চিকিৎসকের বানানো সফটওয়্যার হয়ত চলবে বিদেশিদের কম্পিউটারে, ফোনে। আজকের ছবিগুলো কানাডার ভ্যানকুভারে আমার একজিবিশান বুথের ছবি।

কানাডিয়ান এনেস্থেশলিওজিস্ট সোসাইটির বার্ষিক সভায়। ছবিগুলো বুথ ন্যাড়া অবস্থায় হাতে পাওয়া থেকে আমার নিজের হাতে ব্যনারা টাঙ্গিয়ে সাজানো পর্যন্ত।

প্রথম যখন হাতে পেলাম বুথ, একটু আবেগ এসে ভর করেছিল, যখন গোছানোর কাজ প্রায় শেষ তখন জানিনা কে কাঁদছিল চোখ না কি ঠোঁট! না কি আসলে দুটোই হাসছিল!

Anaesmon-Booth

এবং প্রায় বিশ্বাস করতে পারছিলাম নাহ যখন আমার এই বুথে  World Federation of Society of Anaesthesiologist এর বর্তমান প্রেসিডেন্ট Mr David J Wilkinson আসলেন। গর্বে বুকটা ভরে গেলো।

তবে বাংলাদেশে এই সফটওয়্যার চালাতে গেলে আপনাদের সবার সক্রিয় সহযোগিতা প্রয়োজন! স্বপ্নটা কেবল চোখ থকে বাস্তবে নেমে এসেছে , কতদূর গড়াবে। চলুন স্বপ্নটা নাহয় একসাথেই দেখি! আপনাদের সমর্থন ও সহযোগিতার আশায় রইলাম!

Leave a Reply

Share this

Journals

Email Subscribers

Name
Email *